ফেনীতে ইটভাটায় নিয়ে গণধর্ষনের ঘটনায় অভিযুক্ত ৫ শ্রমিকে গ্রেফতার করেছে ফেনী জেলা পুলিশ

প্রচ্ছদ সারাদেশ

শরিফুল ইসলাম ফেনী প্রতিনিধিঃ

ফেনী সদর উপজেলার ছনুয়া ইউনিয়নে এক হতদরিদ্র নারীকে আর্থিক সহায়তা দেয়ার কথা বলে ইটের ভাটায় ডেকে নিয়ে গণধর্ষণ করেছে কয়েকজন ইটভাটার শ্রমিক। এ ঘটনায় জড়িত ৫ শ্রমিককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

পুলিশ সূত্রে জানাযায়, সোমবার সকাল ১০টার দিকে লেমুয়া বাজার এলাকায় ব্যবসায়ী ও পথচারীদের কাছে ভিক্ষাবৃত্তি করছিলেন এক নারী।  ঘোরাফেরা করা অবস্থায় মেহেরাজ নামে এক যুবক তাকে আর্থিক সহায়তা দেয়ার কথা বলে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক সংলগ্ন ছনুয়া ইউনিয়নের এবিএম ব্রিকফিল্ডে নিয়ে যায়। সেখানে শ্রমিকদের থাকার কক্ষে মেহেরাজ তাকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। এরপর পালাক্রমে সমির, দেলোয়ার হোসেন, তারেক, রমজান আলী, বাবু, মেহরাজ, রিদন সহ কয়েকজন ওই নারীকে ধর্ষণ করে। একপর্যায়ে তাকে বাসে উঠিয়ে দেয়ার জন্য মহাসড়কে নিয়ে গেলে শোরচিৎকারে আশপাশের লোকজন জড়ো হয়।

এই খবর পুলিশ জানতে পেরে সাথে সাথে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে তাৎক্ষনিক সমির, দেলোয়ার , তারেক, রমজান আলী, কে গ্রেফতার করা হয়। তাৎক্ষনিক পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে ৩ জন পালিয়ে যেতে সক্ষম হয়

পলাতক আসামীরা হলেন মেহরাজ, রিদন, সালাউদ্দিন।

পুলিশ সুত্র হতে জানা যায় ওই নারীর নামের ১০ বছরের একটি ছেলে রয়েছে। মাদরাসায় লেখাপড়ার জন্য ও সংসারের খরচ চালানোর জন্য প্রতিদিন বিভিন্ন স্থানে মানুষের কাছে হাত পাততে হয় ফেনী মডেল থানার ওসি মো: শহিদুল ইসলাম চৌধুরী ওই ঘটনায় ৫ জনের গ্রেফতারের সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, নির্যাতনের শিকার নারী বাদি হয়ে ফেনী মডেল থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের করেছেন।