অবশেষে অন্তঃসত্ত্বা সেই নারীকে স্ত্রীর স্বীকৃতি দিলেন সখীপুরের সেই ছাত্রলীগ নেতা

প্রচ্ছদ সারাদেশ

সাদিক বিপ্লব, সখীপুর, (টাংগাইল)

গত ২৭ আগস্ট রবিবার সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে সখীপুরের বড়চওনার এক নারীর ভিডিও ছড়িয়ে পড়ে। যেখানে তিনি সখীপুর শহর ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি সোহেল খান ফাহাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ এনে বলেন, তাকে সোহেল খান ফাহাদ স্ত্রীর অধিকার থেকে বঞ্চিত করেছেন।

শুধু তাই নয়–তার গর্ভের সন্তানকে নষ্ট করার জন্যও তার ওপরে চাপ সৃষ্টি করা হয়েছে। এতে তিনি রাজি না হলে তাকে মারধর করে স্বামীর বাড়ি থেকে বের করে দেয়া হয় বলেও ভিডিওতে অভিযোগ করেন ওই নারী। পরে তিনি থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

এ বিষয়ে ওই নারীর বক্তব্যসহ দেশের প্রায় প্রতিটি গণমাধ্যমে খবর প্রকাশিত হলে সোহেল খান ফাহাদ ব্যাপক সমালোচনার শিকার হন। এমন কি ছাত্রলীগের জেলা নেতৃবৃন্দ তদন্ত সাপেক্ষে অভিযুক্ত সোহেল খান ফাহাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার কথা বলেন।

এরপরে গত গত মঙ্গলবার দারিয়াপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আনসার আলী আসিফসহ ফাহাদের মা এবং তার মামা বড়চওনা ইউনিয়ন পরিষদের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান এবং উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আজহারুল ইসলামের সাথে যোগাযোগ করে আফরোজার নিজ বাড়ি কুতুবপুর উপস্থিত হন এবং মেয়েটিকে তার নিজ বাড়ি থেকে নিয়ে আসেন। পরে চার লাখ টাকার কাবিননামা এবং নতুন করে বিবাহ পড়িয়ে দুই পরিবারের বন্ধন ঠিক করে দেন।

বিষয়টি মেয়ের বাবা-মা এবং অন্তঃসত্ত্বা নারী আফরোজা স্বয়ং ফোন করে দৈনিক নবকাল পত্রিকার সখীপুর উপজেলা প্রতিনিধি সাদিক বিপ্লবকে অবহিত করেন।

এ বিষয়ে সখিপুর থানার এস আই আব্দুর রাজ্জাক বলেন গতকাল রাতে আফরোজা থানায় উপস্থিত হয়ে আপস–মীমাংসাপত্র জমা দিয়ে গেছেন এবং তারা নতুন করে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয়েছেন।