হোম»প্রচ্ছদ»লাইসেন্স ছাড়াই চলছে ৪০টি করাতকল

লাইসেন্স ছাড়াই চলছে ৪০টি করাতকল

প্রচ্ছদ সারাদেশ

নেত্রকোনা প্রতিনিধি

নেত্রকোনার দুর্গাপুরে ৪৭টি করাতকল রয়েছে। তার মধ্যে ৪০টিরই লাইসেন্স নেই। দীর্ঘদিন ধরে এসব অবৈধ করাতকল পরিচালিত হলেও কোনো ব্যবস্থা নেয়নি কর্তৃপক্ষ।

উপজেলা বন বিভাগের তথ্যমতে, দুর্গাপুর পৌরসভাসহ বিভিন্ন ইউনিয়নে করাতকল রয়েছে ৪৭টি। এর মধ্যে লাইসেন্স রয়েছে মাত্র সাতটির। বাকি ৪০টির লাইসেন্স নেই। তবে লাইসেন্সের আবেদন পড়েছে ১২টি করাতকলের।

বন আইন অনুযায়ী কোনো করাতকল মালিক লাইসেন্স না নিয়ে ব্যবসা করতে পারবেন না। তবে এই আইনের তোয়াক্কা না করে অবৈধ করাতকলে নিয়মিত গাছ চেরাই করা হচ্ছে। বন বিভাগের নজরদারি না থাকায়, করাতকলে চেরাই করতে আনা গাছ ফেলে রাখা হয় সড়ক ঘেঁষে। শুধু তাই নয়, লাকড়ি কিনতে ও গাছ নামাতে আসা গাড়িগুলো সড়কের পাশে দাঁড়িয়ে থাকায় যানবাহন চলাচলে বিঘ্ন ঘটছে।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে এক করাতকলের মালিক জানান, দীর্ঘদিন ধরে তার করাতকল চলছে। লাইসেন্স না নিয়ে করাতকল চালানো ঠিক না, কিন্তু জায়গা সমস্যার জন্য লাইসেন্স করতে পারছেন না। বন কর্মকর্তা কিছুদিন আগে পরিদর্শন করে করাতকলটি বন্ধ রাখতে বলেছেন। পরে অন্য এক করাতকলের মালিকের সঙ্গে যোগাযোগ করে তার মাধ্যমেই চা-পান খরচের জন্য কিছু টাকা পাঠানো হয়। এখন আর কোনো সমস্যা নেই, মাসোহারা দিলেই সবকিছু সমাধান।

তবে টাকা নেওয়ার অভিযোগ অস্বীকার করেছেন উপজেলা বন কর্মকর্তা মোহাম্মদ দেওয়ান আলী। তাঁর ভাষ্য, লাইসেন্স ছাড়া করাতকল চালানো যাবে না। তিনি কিছুদিন হয় যোগদান করেছেন। তাই সব চিনতে একটু সময় লাগছে। অচিরেই অভিযান চালানো হবে।

দুর্গাপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মোহাম্মদ রাজীব-উল-আহসান জানান, আগেও ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হয়েছে। বন বিভাগের সঙ্গে কথা বলে আবারও অভিযান চালানো হবে। অবৈধ করাতকলের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।