দেওবন্দ মাদরাসার ২ বাংলাদেশি শিক্ষার্থী গ্রেফতার

আন্তর্জাতিক জাতীয় প্রচ্ছদ

নিজস্ব প্রতিবেদক দেওবন্দ,ভারত

ভারতের উত্তরপ্রদেশের সন্ত্রাসবিরোধী স্কোয়াড (ইউপিএটিএস) বৃহস্পতিবার (২০ জুলাই) সাহারানপুর থেকে দুই বাংলাদেশি নাগরিককে গ্রেফতার করেছে। তারা জাল নথি ব্যবহার করে ভারতীয় নাগরিকের ছদ্মবেশ ধারণ করে দেওবন্দে বসবাস করছিলেন। গ্রেফতার হওয়া দুই ব্যক্তি যথাক্রমে হাবিবুল্লাহ মিসবাহ (২৬) এবং আহমদুল্লাহ (৩৫)।

এটিএস পুলিশ জানিয়েছেন, হাবিবুল্লাহ নিজেকে নাজির এবং আহমেদুল্লাহ আবদুল আউয়াল হিসাবে নিজেকে ছদ্মবেশী করেছিলেন। পুলিশ তল্লাশির মাধ্যমে হাবিবুল্লাহর কাছ থেকে একটি সিম কার্ড, দুইটা মোবাইল সিম, আধার কার্ডের ফটোকপি, পাসপোর্ট সেবাকেন্দ্রের ফি রসিদ, দশ রূপির স্ট্যাম্পে করা এভিডেভিড, রেশন কার্ড, বাংলাদেশের ভোটার আইডি কার্ড, ফিনো ব্যাংকের পাস বই, ডাচ বাংলা ব্যাংকের কার্ড, আসামের বার্থ সাটিফিকেট, প্যান কার্ড ফটোকপি, জামিয়া ইসলামিয়া খানকাহ মাদানিয়া মাদরাসার লেটার এবং ১৭০০ রুপি উদ্ধার করা হয়েছে এবং আহমাদুল্লাহর কাছ থেকে পাওয়া গেছে একটি মোবাইল, দুইটি সিমকার্ড, বাংলাদেশী পাসপোর্ট, ইন্ডিয়ান ভোটার আইডি কার্ড, একটি প্যান কার্ড এবং ১২৩০ টাকা।

স্পেশ্যাল ডিজি ল এন্ড অর্ডার প্রশান্ত কুমার বলেন, জিজ্ঞাসাবাদের মাধ্যমে তাদের কাছ থেকে নিশ্চিত হওয়া গেছে, তারা দু’জনেই বাংলাদেশের নাগরিক এবং অবৈধ উপায়ে বর্ডার ক্রস করে তারা ইন্ডিয়ায় প্রবেশ করেছে।

প্রশান্ত কুমার আরো বলে, “বাংলাদেশী পাসপোর্ট এবং এনআইডি থাকা সত্ত্বেও অবৈধ পন্থায় ইন্ডিয়ান রেসিডেন্সি সার্টিফিকেট এবং আইডেন্টি কার্ড তৈরি করাটা তাদের ইন্ডিয়ান নাগরিক সুবিধা ভোগের ইচ্ছা প্রকাশ করে।”

তবে অপরাধী দু’জনের বক্তব্য থেকে জানা যায়, তারা উচ্চশিক্ষা অর্জনের উদ্দেশ্যে অবৈধ পন্থায় বিদেশের মাটিতে পারি দেন। এ ধরনের অবৈধ পরিচয়পত্র তৈরিতে সাহায্যকারীদের সম্পর্কে জিজ্ঞাসাবাদ চলছে। তাদের সঙ্গে থাকা মোবাইল ফোনের মাধ্যমে যোগাযোগ হওয়া অন্যান্য বাংলাদেশীদের ব্যাপারেও অনুসন্ধান নেওয়া হচ্ছে।